সুস্থ থাকার উপায়

বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সুস্থ থাকার উপায় - বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

স্তন ক্যান্সার প্রতিরোধে শাকসবজি-ফলমূল

Fight Breast Cancerবেশির ভাগ রোগ-ব্যাধির কারণ হলো অস্বাভাবিক উল্টাপাল্টা খাবার খাওয়া. এ ধারণা সেই প্রাচীনকাল থেকে এখনো আজকের আধুনিক যুগের মানুষের চিন্তা-ভাবনায় রয়েছে। এ ধারণার সত্যতা প্রমাণ করতে পেরেছেন বিজ্ঞানীরা। জানা গেছে, অতিরিক্ত ফ্যাটযুক্ত খাবার স্তনক্যান্সারসহ অন্যান্য ক্যান্সারের জন্যও দায়ী।

বিস্তারিত পড়ুন…

সূর্যরশ্মি থেকে ত্বকের সুরক্ষা

health.masudkabir.comসূর্যরশ্মি ত্বকের জন্য খুবই ক্ষতিকর। সূর্যরশ্মির কারণে ত্বকের যে ক্ষতি হয় তাকে ফটোড্যামেজ বলে। ত্বক সূর্যরশ্মিতে কালচে, শুষ্ক,বলিরেখাপূর্ণ হয়ে ওঠে। অল্প বয়সেও সূর্যরশ্মির প্রভাবে ত্বক বয়স্ক দেখায় এবং নানা রকম দাগ ও ত্রুটিযুক্ত হয়। সূর্যরশ্মি নানা রকম হয়। ইনফ্রারেড ডের, আলট্রাভায়োলেট রে এবং আরো অনেক রকম। মূলত আলট্রাভায়োলেট রশ্মি আমাদের ত্বকের ক্ষতি বেশি করে। আলট্রাভায়োলেট রশ্মি দুই প্রকার।

বিস্তারিত পড়ুন…

খাবারের স্বাদ নিয়ে নানা কথা

health.maudkabir.comখাবারের সব স্বাদই জিহ্বায় নয়, টেস্ট বাড (Test bud) নামক স্বাদ সংবেদি অঙ্গ শুধু জিহ্বাতে নয়, মুখগহ্বরের তালুতে, গালের ভেতরে দুই পাশে এমনকি খাদ্যনালীর উপরিভাগে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে রয়েছে। টেস্ট বাডের অভ্যন্তরে বিভিন্ন জটিল মিথস্ক্রিয়া ঘটে থাকে, স্নায়ুজালিকাসমৃদ্ধ প্রতিটি টেস্ট বাড প্রধান স্বাদ (মিষ্টি, টক, তিতা, লবণাক্ত) এবং যেকোনো সুস্বাদুতা নির্ণয় করতে পারে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, মুখের এবং নাকের সংবেদনশীলতার মিথস্ক্রিয়া খাবারের স্বাদ বহু গুণে বাড়িয়ে দেয়। আমরা নিশ্চয়ই খেয়াল করব যে, ঠাণ্ডা বা সর্দি লাগলে কোনো খাবারের সঠিক স্বাদ এমনকি কোন খাবার খাচ্ছি তা নির্ণয় করা যায় না। মুখভর্তি খাবার নিয়ে মুখবন্ধ করে নাক দিয়ে শ্বাস ছাড়লে এই বাষ্প নাসারন্ধ্রের ভেতরের দিকে অবস্থিত অলফ্যাক্টরি নার্ভের সংস্পর্শে এসে খাদ্য স্বাদ বাড়িয়ে দেয়। এ ছাড়া খাদ্যদর্শনও খাদ্যের স্বাদ আনে।

বিস্তারিত পড়ুন…

ডায়াবেটিস রোগ এবং পায়ের যতন

health.masudkabir.comডায়াবেটিস বা বহুমূত্র রোগ বর্তমান পৃথিবীতে অতি পরিচিত রোগ, যা ছড়িয়ে পড়েছে পৃথিবীর আনাচে-কানাচে। শরীরে অগ্ন্যাশয়ের বিটা বা বি কোষ হতে তৈরি হয় ইনসুলিন হরমোন, যা রক্তের মাধ্যমে কোষে প্রবেশ করে ও দহনের মাধ্যমে শক্তি জোগায়। বিটা কোষ এ ইনসুলিন তৈরিতে ব্যর্থ হলে বা এর কার্যকারিতা নষ্ট হলে রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে যায় ও তা নিয়ন্ত্রণ না করলে বিভিন্ন রোগের উপসর্গ দেখা দেয়। কারণ কোষ শক্তি সঞ্চালনের জন্য প্রয়োজনীয় গ্লুকোজ পায় না।

বিস্তারিত পড়ুন…

হাঁপানি রোগীদের জন্য দশ সতর্কতা

health.masudkabir.comঅ্যাজমা বা হাঁপানি হলো শ্বাসতন্ত্রের দীর্ঘমেয়াদি প্রদাহজনিত রোগ। এতে আক্রান্ত রোগীর শ্বাসপথ দেহের ভেতরের বা বাইরের অ্যালার্জেন বা অ্যালার্জেনসম পদার্থের প্রতি অত্যধিক মাত্রায় সংবেদনশীলতা প্রদর্শনপূর্বক অনেক সঙ্কুচিত হয়ে পড়ে এবং শ্বাসপথের সঙ্কোচনের সময়ের ব্যাপ্তি হয় স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি। ফলে আক্রান্ত রোগীর শ্বাস-প্রশ্বাসের সময় শ্বাসপথ দিয়ে বায়ুর স্বাভাবিক আসা-যাওয়া ব্যাহত হয়। পরিণতিতে আক্রান্ত রোগী কাশি, শ্বাসকষ্ট, স্বশব্দে কষ্টসহকারে শ্বাস নেয়া, বুকে চাপসহ নানা উপসর্গে ভুগে থাকেন।

বিস্তারিত পড়ুন…

বয়সের আগেই বয়সের ছাপ!

health.masudkabir.comআয়নার সামনে দাঁড়াতেই চোখ কপালে। এ কী বলিরেখা! ভুল দেখছি না তো! কপালে শুধু ভাঁজই পড়েনি। চোখের কোণের বলিরেখাও যেন আপনার দিকে তাকিয়ে আছে। এই বয়সেই বলিরেখা! এখন উপায়?

কেন আগেই বলিরেখা দেখা দেয়
ইদানীং অনেকেরই দেখা যাচ্ছে, পরিণত বয়সের আগেই চেহারায় বলিরেখা পড়ছে। সাধারণত ৩০ বছর বয়সের পরে অ্যান্টি-এজিং ক্রিম ব্যবহার করা ভালো।

বিস্তারিত পড়ুন…

শিশুর নিঃশ্বাসে হুইজিং বা বাঁশির মতো শব্দ

health.masudkabir.comপাঁচ বছরের কম বয়সের শিশুদের শ্বাসনালীর প্রদাহ এবং সঙ্কোচন হয় সাধারণত শ্বাসনালীতে ভাইরাসের আক্রমণে। এ সময় শিশুর শ্বাস-প্রশ্বাসের সাথে বাঁশির শব্দের অনুরূপ শব্দ পরিলক্ষিত হয়।

শ্বাস-প্রশ্বাসের এই বাঁশির শব্দ ভবিষ্যতে অ্যাজমায় আক্রান্ত হওয়ার অনেকখানি ইঙ্গিত বহন করে। এই হুইজিং সাউন্ড (বাঁশির মতো শব্দ) সৃষ্টিকে বয়স্ক এবং শিশুদের শ্বাসনালীর গঠনগত এবং কার্যগত পার্থক্যের মাধ্যমে ব্যাখ্যা করা যায়।

বিস্তারিত পড়ুন…

নিপাহ ভাইরাসের ভয়াবহতা

health.masudkabir.comনিপাহ ভাইরাস কি?
নিপাহ ভাইরাস একটি Emerging zoonotic ভাইরাস, যা পশু-পাখি থেকে মানুষে ছড়ায়। ভাইরাসটি মস্তিষ্ক বা শ্বসনতন্ত্রে প্রদাহ তৈরির মাধ্যমে মারাত্মক অসুস্থতার সৃষ্টি করে। এটি Henipavirus জেনাসের অন্তর্গত একটি ভাইরাস।

নিপাহ ভাইরাসে এনসেফালাইটিস নামক মস্তিষ্কের প্রদাহজনিত রোগ হয়। এ রোগটি হার্পিস ভাইরাস (herpes simplex), ফ্লাভিভাইরাস (Flaviviruses) সহ অন্যান্য ভাইরাস দ্বারাও হতে পারে। তবে বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা অনুসন্ধান ও পরীক্ষার মাধ্যমে নিশ্চিত হয়েছেন, নিপাহ ভাইরাস সংক্রমণের ফলেই এ রোগ ছড়িয়েছে।

বিস্তারিত পড়ুন…

ভালো ত্বকের জন্য কিছু কথা

health.masudkabir.comত্বকের যতনের ব্যাপারে নারী-পুরুষ উভয়েই সচেতন হয়ে উঠেছেন। নানারকম ক্রিম, তেল, সাবান, ফেসওয়াশ, পাউডার ইত্যাদির বিজ্ঞাপন রেডিও, টিভি ও পত্র-পত্রিকায় সবসময়ই প্রচারিত হচ্ছে। রং ফর্সা করা, কালো দাগ ও ব্রণ দূর করা— কোনো কিছুই যেন আজকাল আর অসম্ভব নয়। অথচ ত্বকের সৌন্দর্য বা যত্নের ব্যাপারে আমাদের ধারণা অনেকাংশেই ভুল। স্বাস্থ্যসচেতন হলে ত্বক এমনিতেই সুন্দর থাকার কথা। আপনি যে সুস্থ আছেন সেটা আপনার চমত্কার ত্বক দেখেই বোঝা সম্ভব।

বিস্তারিত পড়ুন…

স্কার্ভি রোগের কারণ ও চিকিৎসা

scurveyএটি মাঢ়ির খুব পরিচিত একটি রোগ। মোটামুটিভাবে ছোট-বড় সবাই মুখে মুখে এই রোগটির সাথে পরিচিত। শরীরে দীর্ঘ দিন ভিটামিন ‘সি’-এর অভাবে এই রোগ হয়। প্রধানত শরীরে ভিটামিন ‘সি’-এর অভাবে স্কার্ভি হয়। তবে এটিই একমাত্র কারণ নয়। এর সাথে অন্যান্য ভিটামিন মিনারেলও কিছুটা যুক্ত থাকতে পারে। তা ছাড়া কিছু স্থানীয় কারণ যেমন মুখে প্রচুর প্লাক, ক্যালকুলাস (দাঁতের পাথর) থাকলে এর প্রকোপ আরো বেড়ে যায়।

বিস্তারিত পড়ুন…

দেহ গঠনে প্রোটিনযুক্ত খাবার

দেহ গঠনে প্রোটিনযুক্ত খাবারআমাদের শরীরের প্রধান উপাদান অ্যামাইনো অ্যাসিড। এই অ্যামাইনো অ্যাসিড থাকে প্রোটিনের মধ্যে। তাহলে প্রোটিন হচ্ছে একধরনের অ্যামাইনো অ্যাসিড, যা দেহ গঠন ও কোষকলা তৈরিতে সাহায্য করে। সে জন্যই প্রোটিনের এত কদর, এত গুরুত্ব। প্রোটিন প্রধানত দুই রকমের : প্রাণীজ প্রোটিন দুধ, মাছ, গোশত ইত্যাদি। উদ্ভিজ্জ প্রোটিন চাল, ডাল, শিম, সয়াবিন, বাদাম ইত্যাদি।

শরীর গঠনের জন্য মোট ২২ রকমের অ্যামাইনো অ্যাসিড লাগে। ২২ ধরনের অ্যামাইনো অ্যাসিডের মধ্যে মানুষের শরীর থেকে তৈরি হয় ১৩ রকমের অ্যামাইনো অ্যাসিড। বাকি ৯ ধরনের অ্যামাইনো অ্যাসিড শরীর তৈরি করতে পারে না; এগুলো খাবারের মাধ্যমে শরীরে আসে। এই ৯টি অ্যামাইনো অ্যাসিডকে অ্যাসেনশিয়াল অ্যামাইনো অ্যাসিড বলা হয়।

বিস্তারিত পড়ুন…

পাইলস ফিস্টুলা না ক্যান্সার?

health.masudkabir.comপাইলস রোগটি আমাদের দেশের সাধারণ রোগীদের কাছে পরিচিত একটি রোগ। সর্বসাধারণের ধারণা পায়ুপথের বিভিন্ন সমস্যা যেমন রক্ত যাওয়া, ব্যথা হওয়া, ফুলে যাওয়া এসবই হয় পাইলসের কারণে। কিন্তু আসলে এ ধারণা সঠিক নয়। উপরিউক্ত প্রতিটি উপসর্গই পায়ুপথে ক্যান্সার হলে হতে পারে। আবার ফিস্টুলা বা ভগন্দর রোগেও উপরিউক্ত উপসর্গগুলো দেখা দিতে পারে। আবার এমন হতে পারে যে, প্রথমত পায়ুপথে ক্যান্সার হয়েছে সেটিও ফিস্টুলা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে পারে।

বিস্তারিত পড়ুন…

মোট 37 পৃষ্ঠা এর মধ্যে 18« প্রথম পাতা...10...1617181920...30...শেষ পাতা »