সুস্থ থাকার উপায়

বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সুস্থ থাকার উপায় - বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

বাতরোগের চিকিৎসায় স্টেরয়েড

স্টেরয়েড হলো কৃত্রিমভাবে তৈরি প্রদাহ বিরোধী বিকল্প হরমোন। হরমোনগুলোর নাম হলো কর্টিকো স্টেরয়েড ও গ্লুকোকর্টিকয়েড, শরীরের অ্যাড্রেনাল গ্রন্থি এগুলো তৈরি করে। ওষুধ তৈরি হয় এসব নামে যেমন ডেক্সামেথাসন, হাইড্রোকর্টিসন এবং প্রেডনিসোলন।

বিস্তারিত পড়ুন…

গোড়ালির অতিরিক্ত হাড় কারণ ও করণীয়

জোড়া ছাড়াও শরীরের বিভিন্ন হাড়ে অতিরিক্ত হাড় গজায়। এদের মধ্যে ক্যালকেনিয়াম (পায়ের হাড়) অন্যতম, যেখানে অতিরিক্ত হাড় গোড়ালির নিচে ও পেছনে গজায়। এ অতিরিক্ত হাড়কে ক্যালকেনিয়াম স্পার বলে। পায়ের সবচেয়ে বড় হাড় ক্যালকেনিয়াম যা দাঁড়ালে বা হাঁটলে সবচেয়ে প্রথম মাটির সংস্পর্শে আসে ও শরীরের পূর্ণ ওজন বহন করে। এর যে কোনো ক্ষুদ্র অসঙ্গতির ফলে বিভিন্ন ধরনের উপসর্গ দেখা দেয়।

বিস্তারিত পড়ুন…

গেঁটেবাত উপশমে ইউরিক এসিড নিয়ন্ত্রণ

গেঁটেবাত উপশমে ইউরিক এসিড নিয়ন্ত্রণঅপুষ্টির পাশাপাশি অতিপুষ্টির কারণেও শরীরে রোগের সৃষ্টি হয়। কোনো একটি অত্যাবশ্যকীয় খাদ্য উপাদান খুব বেশি গ্রহণের ফলে একটি নির্দিষ্ট সীমার পর সেই উপাদানটি উপকার না করে বরং দেহের ক্ষতি করতে শুরু করে। তেমনি একটি উপাদান হলো প্রোটিন। অতিরিক্ত মাংসাশী যারা, অর্থাৎ যারা প্রথম শ্রেণীর প্রোটিন বা রিচ ফুড বেশি খান, অতিরিক্ত প্রোটিন তাদের শরীরে কিছু বিষাক্ত উপাদানের পরিমাণ বাড়িয়ে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে।

বিস্তারিত পড়ুন…

আর্থ্রাইটিস ও চিকিত্সা

আর্থ্রাইটিস একটি গ্রিক শব্দ। মানুষের শরীরের জোড়ার অনেক রোগ বা সমস্যাকে একসঙ্গে আর্থ্রাইটিস বলা হয়। আর আর্থ্রাইটিস সম্পর্কে জানার আগে জয়েন্ট বা অস্থিসন্ধি সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। মানুষের শরীরে বহু জয়েন্ট বা জোড়া রয়েছে এবং এসব জোড়া তিন ধরনের। এসব জোড়ায় যদি কোনোভাবে প্রদাহ বা ইনফ্লামেশন হয়, তখন ডাক্তারি ভাষায় তাকে আর্থ্রাইটিস বলা হয়। আর্থ্রাইটিসকে অনেকে বাতরোগ বলে থাকে।

বিস্তারিত পড়ুন…

হাঁটুর বাতব্যথা

অনেক দিন শরীরে ব্যথা থাকলে তাকে অনেকে বাতব্যথা বলে থাকেন। কথাটা কিন’ মিথ্যা নয়। আমরা ডাক্তারি বিদ্যায় এটাকে রিউমেটিক পেইন বলে থাকি। তবে বাংলাদেশের গ্রামেগঞ্জে এটা বাতব্যথা নামেই পরিচিত। সন্ধিবাত বা জোড়াব্যথা জীবনে হয়নি এমন মানুষ খুব কম। এ ধরনের বাতব্যথা সাধারণত বয়স্কদের বেশি হয়, তবে কম বয়সীরাও অনেক সময় এ রোগে ভুগে থাকে।

বিস্তারিত পড়ুন…

হাঁটুর ক্ষয় রোগে করণীয়

Knee ক্ষয়ে  যাওয়া হাঁটু নিয়ে সমস্যায় পড়েন অনেকে। কি করা উচিত এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে মনে নানা দ্বন্ধ। প্রতিস্থাপন কখন করা উচিত এনিয়েও নানা মত। বুড়ো হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা। তবে চিকিত্সা বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ডাক্তার ও রোগীরা সীমারেখা অনেক বেশি টেনেছেন। বর্তমানে কৃত্রিম জানু প্রযুক্তি ও সার্জিক্যাল কৌশলের ক্ষেত্রে এত উন্নতি হয়েছে যে প্রতিস্থাপন এখন অনেক বেশি দিন টিকেছ ২০ বছর বা এরও বেশি। তবু ডাক্তাররা এখনও প্রতিস্থাপনের রোগীদেরকে অসুস্থ না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছেন। ফলে অনেক রোগী তাদের জানুসন্রি কোমলাস্থি পুরোপুরি ক্ষয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করে চলেছেন। বিস্তারিত পড়ুন…