সুস্থ থাকার উপায়

বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সুস্থ থাকার উপায় - বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

রাতে জেগে দিনে ঘুমোচ্ছেন? সাবধান, ডায়াবেটিস হতে পারে!

রাতে বিছানায় শুয়ে শুধু এ পাশ আর ও পাশ। ঘুমের ওষুধ খেয়েও কোনো লাভ হচ্ছে না। চোখে এক ফোঁটা ঘুম নেই। রাতে ঘুম নেই অথচ দিনের বেলায় ঘুমে ঢুলছেন।ভাবছেন এ সব মামুলি সমস্যা! রাতে পর্যাপ্ত ঘুম না হওয়ায় দিনের বেলায় ঘুমিয়ে পড়ছেন। এতটা ছাড় কিন্তু দেবেন না। সময় থাকতে সাবধান হন। অজান্তেই ডায়াবেটিসের কবলে পড়ছেন না তো?

বিস্তারিত পড়ুন…

ডায়াবেটিসে চোখের পাওয়ার

ডায়াবেটিসের সাথে চোখের পাওয়ারের একটা সরাসরি যোগ রয়েছে। রক্তে শর্করা বৃদ্ধি বা কমার ফলে চোখের পাওয়ারও সাময়িকভাবে বাড়তে পারে বা কমতে পারে। অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিসে রক্তে শর্করার পরিমাণ বৃদ্ধি পেলে চোখের অ্যাকুয়াস হিউমারেও শর্করার পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। এর ফলে চোখের ভেতরে থাকা লেন্সে আস্রাবন বা অসমোটিক পরিবর্তন হয়। এতে লেন্সের মধ্যে পানি ও চিনি বেশি করে প্রবেশ করে লেন্সটি পুরু হয়ে যায়। এর ফলে লেন্সের পাওয়ার আগের চেয়ে বৃদ্ধি পায়।

বিস্তারিত পড়ুন…

মাঝবয়সে ডায়াবেটিস?

মাঝবয়সে ডায়াবেটিস ধরা পড়লে জীবনযাপনের ধরনে অনেক পরিবর্তন আনতে হয়। সুস্থ থাকার জন্য তখন চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী খাওয়া, ঘুম, শরীরচর্চা ইত্যাদি বিষয়ে সুশৃঙ্খল বিভিন্ন অভ্যাস রপ্ত করতে হয়। নিয়ন্ত্রিত জীবন কাটাতে পারলে ডায়াবেটিস নিয়েও ভালো থাকা যায়।

বিস্তারিত পড়ুন…

১১ দিনেই রিচার্ডের ডায়াবেটিস নির্মূল, অভাবনীয় ডায়েট

বৃটেনের রিচার্ড ডটি (৫৯) নামের এক ব্যক্তি বেশ অল্প ক্যালোরিসম্পন্ন খাবার খেয়ে ১১ দিনেই ডায়াবেটিস থেকে মুক্তি পেয়েছেন। তার ডায়েট চার্টটিও দিয়েছেন। যা যা খেতেন, তার তালিকা একেবারেই ছোট। ডায়াবেটিস এমন একটি রোগ যা কখনও সম্পূর্ণ নির্মূল হয় না। এমন প্রচলিত ধারণাকে পাল্টে দিয়েছেন রিচার্ড। মানুষ শরীর থেকে অতিরিক্ত মেদ ঝরাতে বিভিন্ন ডায়েট পরিকল্পনা করে। কিন্তু তিনি প্রায় অভুক্ত থাকার ডায়েটেই নিরোগ শরীর পেলেন।

বিস্তারিত পড়ুন…

রোজায় খাদ্যাভ্যাস ও করণীয়

ইসলামের জীবন ব্যবস্থায় পাঁচটি স্তম্ভ রয়েছে, তার মধ্যে রমজান মাসের রোজা অন্যতম। সুস্থ প্রাপ্তবয়স্ক সব মুসলমানের জন্য রমজান মাসের রোজা ফরজ করা হয়েছে। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উপবাসের নিয়ত করে সুবেহ সাদিক থেকে সূর্যাস্ত্ত পর্যন্ত পানাহার ও সব ধরনের ইন্দ্রিয় তৃপ্তিকর কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকার নাম রোজা। রমজান মাসে আল্লাহ তায়ালা মানুষের জন্য অফুরন্ত রহমত, বরকত, মাগফিরাত, নাজাত ও ফজিলত দান করেন। রমজান মাসের রোজার ফজিলত বর্ণনা করে শেষ করা যায় না। হুজুর পাক (সা.) বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি রমজান মাসে ঈমানের সঙ্গে কেবল আল্লাহর সন্তুষ্টি ও আখিরাতের কল্যাণ লাভের আশায় রোজা পালন করবে, আল্লাহ তায়ালা তার আগের সব সগিরা গোনাহ মাফ করে দেবেন।’

বিস্তারিত পড়ুন…

ডায়াবেটিস এবং এক্সারসাইজ

ডায়াবেটিস রোগ নিয়ে ভুগছে না এমন পরিবারের সংখ্যা দিনে দিনে কমে আসছে। যদি এমন পরিবারের সদস্য না হয়ে থাকেন তবে আপনি ভাগ্যবানদের একজন বলাই যায়, কেননা এই ডায়াবেটিস ধীরে ধীরে শরীরের প্রধান প্রধান অঙ্গকে আক্রমণ করে।

আমাদের টার্গেট হবে, যদি ডায়াবেটিস হয়েও যায় তবু রক্তে গ্লুকোজের লেভেল মেইন্টেইন করে একে স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করা। কেননা, রক্তে গ্লুকোজ স্বাভাবিক থাকলেই আমরা এসব সমস্যাকে কমিয়ে রাখতে পারব। শারীরিক ব্যায়াম এই ব্যাপারে খুব ভালো ভূমিকা পালন করে। যদি রেগুলার ব্যায়াম করা যায়, তবে ডায়াবেটিসকে বেশ ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব।

বিস্তারিত পড়ুন…

ডায়াবেটিস ও চোখের রোগ

সাধারণত একজন মানুষের যেমন চোখে নানা রোগ হতে পারে, তেমনি ডায়াবেটিস রোগীরও সেসব রোগ হতে পারে। এছাড়া ডায়াবেটিসের কারণে চোখে বিশেষ কিছু রোগ হতে পারে। বস্তুত চোখের সব অংশই ডায়াবেটিসের জটিলতায় প্রভাবিত হতে পারে। এর মধ্যে কিছু কিছু জটিলতার কারণে চোখ অন্ধ হয়ে যায়। চক্ষুকোটরের রোগের মধ্যে সবচেয়ে মারাত্মক হচ্ছে ফাংগাস জীবাণু মিউকোর দ্বারা কোটরের কোষপ্রদাহ বা সেলুলাইটিস। এ রোগকে বলা হয় অরবটাল মিউকোর মাইকোসিস।

বিস্তারিত পড়ুন…

মুটিয়ে যাবার বিপদ অনেক

মুটিয়ে যাবার বিপদ অনেকআপনি কি মুটিয়ে যাচ্ছেন? বিশেষ করে আপনার উদর বা ভুঁড়ি কি স্ফীত হচ্ছে? আপনার কোমরের ব্যাসার্ধ (পুরুষ হলে) কি ৯৪ সে.মি. এবং (মেয়ে হলে) কি ৮০ সে.মি.-এর বেশি? ইদানীং আহারের পর কি বেশ ক্লান্তি বোধ করছেন? চিন্তা-চেতনাগুলো কি ভোঁতা হয়ে যাচ্ছে? মেজাজ কি খিটমিটে হচ্ছে? হঠাত্ কি রেগে যাচ্ছেন?

আচ্ছা আপনার রক্তচাপ মেপে দেখুন তো। রক্তচাপ কি ১৪০/৯০ মি.মি. পারদের বেশি? এবার সকালে অভুক্ত অবস্থায় রক্তের সুগার, লিপিড প্রোফাইল (কোলেস্টেরল) এবং ইউরিক অ্যাসিড চেক করুন তো। হায় কপাল! সুগারও বেড়ে গেছে? সেই সঙ্গে বেড়েছে রক্তের খারাপ কোলেস্টেরল তথা এলডিএল ও ট্রাইগ্লিসারাইড এবং কমে গেছে বন্ধু বা উপকারী কোলেস্টেরল তথা এইচডিএল। রক্তের ইউরিক এসিডও কি বেড়ে গেছে?

বিস্তারিত পড়ুন…

মাশরুম : ডায়াবেটিসসহ অনেক রোগের ওষুধ

mushroomমাশরুম হলো মহৌষধি গুণসম্পন্ন অত্যন্ত পুষ্টিকর ছত্রাকজাতীয় সবজি। পবিত্র আল কুরআন ও হাদিস শরিফ থেকে জানা যায়, মাশরুম আল্লাহপাকের প্রদত্ত স্বর্গীয় খাবার, যা পুষ্টিগুণে ভরপুর এবং বিভিন্ন রোগের প্রতিষেধক গুণসম্পন্ন একটি মহৌষধ। মাশরুমে আমিষ, শর্করা, চর্বি, মিনারেল ও ভিটামিন (সব); চর্বি ও শর্করা (স্বল্প);  ফলিক অ্যাসিড, লৌহ-প্রভৃতি ওষুধি গুণাগুণ ও উপাদান থাকায় এটি মানব শরীরে রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা বর্ধনপূর্বক ডায়াবেটিস; ব্লাডপ্রেসার; কিডনি ও এলার্জি; যৌনরোগ ও অক্ষমতা; আলসার, বাতের ব্যথা প্রভৃতি জটিল ও কঠিন দুরারোগ্য ব্যাধি মুক্ত করে নিরাময়কের মহাভূমিকা পালন করে থাকে।

বিস্তারিত পড়ুন…

ডায়াবেটিস রোগ এবং পায়ের যতন

health.masudkabir.comডায়াবেটিস বা বহুমূত্র রোগ বর্তমান পৃথিবীতে অতি পরিচিত রোগ, যা ছড়িয়ে পড়েছে পৃথিবীর আনাচে-কানাচে। শরীরে অগ্ন্যাশয়ের বিটা বা বি কোষ হতে তৈরি হয় ইনসুলিন হরমোন, যা রক্তের মাধ্যমে কোষে প্রবেশ করে ও দহনের মাধ্যমে শক্তি জোগায়। বিটা কোষ এ ইনসুলিন তৈরিতে ব্যর্থ হলে বা এর কার্যকারিতা নষ্ট হলে রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে যায় ও তা নিয়ন্ত্রণ না করলে বিভিন্ন রোগের উপসর্গ দেখা দেয়। কারণ কোষ শক্তি সঞ্চালনের জন্য প্রয়োজনীয় গ্লুকোজ পায় না।

বিস্তারিত পড়ুন…

ডায়াবেটিস ও চোখের ছানি

health.masudkabir.comচোখের লেন্স বা এর আবরণ (ক্যাপসুল) ঘোলা হয়ে যাওয়াকেই বলা হয় ছানি বা ক্যাটার্যাক্ট। আমাদের দেশে অন্ধত্বের অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে চোখের ছানি। ছানির প্রথম অবস্থায় লেন্সের কিছু অংশ ঘোলাটে হয় এবং খুব ধীরে ধীরে দৃষ্টির প্রখরতা কমতে থাকে। প্রাথমিক অবস্থায় চশমার পাওয়ার পরিবর্তন করলে দৃষ্টির প্রখরতা বাড়ানো সম্ভব। তবে ক্রমে ক্রমে লেন্স আরও ঘোলাটে হতে থাকে এবং ২-৩ বছরের মধ্যে প্রায় সম্পূর্ণ লেন্সই ঘোলা হয়ে যায়। সাধারণ মানুষ এ অবস্থাকে ‘ছানি পাকা’ বলে অভিহিত করেন।

বিস্তারিত পড়ুন…

স্ট্রোক প্রতিরোধেই প্রতিকার

স্ট্রোকের এক-তৃতীয়াংশ অত্যন্ত বিপজ্জনক, মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের ফলে মৃত্যুর হার ৫০ শতাংশ। প্রথম ৪৮ ঘণ্টা ধীরে ধীরে রক্তক্ষরণ হয়ে থাকে, পরে রক্তক্ষরণ বন্ধ হয়ে যায়। ৬০ বছরের বেশি বয়সের মানুষের মধ্যে স্ট্রোক মৃত্যুর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ কারণ। বিশ্বে প্রতি ছয়জনে একজন এবং প্রতি ছয় সেকেন্ডে কোথাও না-কোথাও কেউ স্ট্রোকে আক্রান্ত হচ্ছে। প্রতিবছর বিশ্বজুড়ে প্রায় ৬০ লাখ মানুষ স্ট্রোকে মারা যায় এবং এই সংখ্যা এইডস, ম্যালেরিয়া ও টিবির সম্মিলিত মৃত্যুর সংখ্যা থেকেও বেশি।

বিস্তারিত পড়ুন…

মোট 4 পৃষ্ঠা এর মধ্যে 11234