সুস্থ থাকার উপায়

বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সুস্থ থাকার উপায় - বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

ঘাড়ে বাতজনিত সমস্যা

ঘাড়ে বাতের ব্যথা সর্বদা ঘাড়ের পেছনে অনুভূত হয়, কখনোই ঘাড়ের সামনের দিকে অনুভূত হবে না। ব্যথা তীব্র হলে তা কাঁধে ও বাহুর পেছনের দিকে কনুই পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়তে পারে। কখনো কখনো ব্যথা হাতে ও আঙুলে ছড়িয়ে পড়ে। বয়স বাড়ার সাথে সাথে মেরুদণ্ড ও ঘাড়ের হাড় ও কার্টিলেজে কিছু পরিবর্তন ঘটতে থাকে, যার কারণে ঘাড়ে বাতের সমস্যা হয়। চিকিৎসা পরিভাষায় তাকে বলে সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস।

বিস্তারিত পড়ুন…

ঘাড়ের বাত : সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস

হাসনাত সাহেবের বয়স ৫০। কয়েক দিন ধরে ঘাড়ে বেশ ব্যথা অনুভব করছেন তিনি। প্রথমে ভেবেছিলেন উল্টোপাল্টাভাবে শোয়ার কারণে বুঝি এমনটি হচ্ছে। স্ত্রীকে জানালে স্ত্রী বললেন, বালিশ রোদে গরম করলে ঘাড়ের ব্যথা সেরে যায়। স্ত্রীর কথামতো রোদে গরম করা বালিশে শুয়ে প্রথম দু-একদিন কিছুটা আরামবোধ করলেও কয়েক দিন পর ব্যথা তীব্র হয়ে উঠল। বালিশ রোদে গরম করেও আর কোনো লাভ হলো না। ঘাড়ের তীব্র ব্যথার সাথে যুক্ত হলো হাতের আঙুলে ঝিনঝিন অনুভূতি। অস্বস্তিকর এই সমস্যা সহ্য করতে না পেরে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হলেন তিনি। চিকিৎসক রোগের বর্ণনা শুনে এবং কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে পরিশেষে বললেন, রোগটি হলো সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস।

বিস্তারিত পড়ুন…

আর্থ্রাইটিস ও চিকিত্সা

আর্থ্রাইটিস একটি গ্রিক শব্দ। মানুষের শরীরের জোড়ার অনেক রোগ বা সমস্যাকে একসঙ্গে আর্থ্রাইটিস বলা হয়। আর আর্থ্রাইটিস সম্পর্কে জানার আগে জয়েন্ট বা অস্থিসন্ধি সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। মানুষের শরীরে বহু জয়েন্ট বা জোড়া রয়েছে এবং এসব জোড়া তিন ধরনের। এসব জোড়ায় যদি কোনোভাবে প্রদাহ বা ইনফ্লামেশন হয়, তখন ডাক্তারি ভাষায় তাকে আর্থ্রাইটিস বলা হয়। আর্থ্রাইটিসকে অনেকে বাতরোগ বলে থাকে।

বিস্তারিত পড়ুন…

হাড়ের ক্ষয় চিকিত্সা ও প্রতিকার

হাড়ের ক্ষয়রোগ একটি নীরব ঘাতক, যা মানুষকে আস্তে আস্তে ক্ষতিগ্রস্ত ও পঙ্গু করে এবং মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়। তীব্র ব্যথা, বেঁকে যাওয়া এবং হাড় না ভাঙা পর্যন্ত বোঝা যায় না—হাড়ে মরণব্যাধি ক্ষয়রোগ হয়েছে। প্রাথমিকভাবে কোনো সুনির্দিষ্ট চিহ্ন ছাড়াই দীর্ঘদিন ধরে নীরবে এ রোগ শরীরে থাকে। মানবশরীরে ২০৬টি হাড় থাকে এবং প্রতিটি হাড় ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, সোডিয়াম ও অন্যান্য লবণ, ভিটামিন, আমিষ এবং কোলাজেন দিয়ে তৈরি হয়।

বিস্তারিত পড়ুন…

সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস – ঘাড়ের ব্যথা

ঘাড়ে ব্যথার নানাবিধ কারণ রয়েছে। যেমন- যেকোনো ধরনের আঘাত লাগা, পজিশনাল অর্থাৎ ঘাড়ের নড়াচড়ার কারণে ব্যথা, হাড়ের ইনফেকশন, অস্টিওপরোসিস, টিউমার, অস্টিও ম্যালেসিয়া বা ভিটামিন ডি-এর অভাব, সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস ইত্যাদি। তবে সাধারণত ঘাড়ে ব্যথা সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিসের জন্য বেশি হয়। যাদের বয়স ৪৫ বছরের বেশি তাদের মধ্যেই এ রোগ বেশি দেখা যায়। সার্ভাইক্যাল স্পনডাইলোসিস ঘাড়ের দুই হাড়ের মধ্যবর্তী তরুণাসি’র বার্ধক্যজনিত পরিবর্তনের ফলে হয়ে থাকে।

বিস্তারিত পড়ুন…

দূর করুন কাঁধের ব্যথা

কাঁধে  ব্যথা এক মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা। ব্যথা তীব্র হলে দৈনন্দিন জীবনে ঘটে ছন্দপতন। অনেকে ব্যথার জন্য ঘাড়ের ওপরে হাতই তুলতে পারেন না। কাঁধ নাড়াতেও বেশ কষ্ট হয়। অসহ্য ব্যথায় অনেক সময় শরীরের পেশি শক্ত হয়ে ওঠে। সাধারণত যে কারণগুলোর জন্য কাঁধে ব্যথা হয় এবং ভুক্তভোগী মারাত্মক বিপর্যয়ের সম্মুখীন হন তার মধ্যে “ফ্রোজেন শোল্ডার” অন্যতম।

বিস্তারিত পড়ুন…

ঘাড়ের রোগের ব্যতিক্রমী উপসর্গগুলো

চল্লিশোর্ধ্ব অফিস এক্সিকিউটিভ মি. মামুন একদিন সকালে তীব্র বুকের ব্যথায় আক্রান্ত হলেন। উদ্বিগ্ন পরিবার তাকে নিয়ে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হলেন। অভিজ্ঞ চিকিৎসক ইসিজির সাথে ঘাড়ের একটি ডিজিটাল এক্স-রে করালেন। দেখা গেল মামুন সাহেব সারভাইক্যাল স্পন্ডাইলোসিসে আক্রান্ত। দুই সপ্তাহ ফিজিওথেরাপি নেয়ার পর মামুন পুরোপুরি সুস’। এমনি অনেক রোগী আছেন যারা ঘাড়ের রোগে আক্রান্ত কিন’ উপসর্গ প্রকাশ পেয়েছে অন্যভাবে।

বিস্তারিত পড়ুন…