সুস্থ থাকার উপায়

বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সুস্থ থাকার উপায় - বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

হৃদরোগের ঝুঁকি খাটোদের বেশি

heart-shortখাটো মানুষের দুর্ভাবনা আরও বেড়ে গেল। কারণ তাদের নাকি হৃদরোগের ঝুঁকি বেশি। মানুষের উচ্চতার সঙ্গে হৃদরোগের সম্পর্ক নিয়ে গবেষণা হয়েছে বিস্তর। গত ৬০ বছর বিশ্বজুড়ে পাওয়া গেছে এ ধরনের ২০ হাজার প্রতিবেদন। যদিও একেকটির ফল একেক রকম। তবে বুধবার ‘ইউরোপিয়ান হার্ট জার্নাল’-এ প্রকাশিত প্রতিবেদনে ফিনল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব টেম্পেরের গবেষকরা দাবি করছেন, তারা একটা সম্পর্ক খুঁজে পেয়েছেন।

৩০ লাখ লোকের ওপর গবেষণা চালিয়ে তারা দেখেছেন, ৫ ফুট ৫ ইঞ্চির কম লম্বা পুরুষের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি এর বেশি উচ্চতার পুরুষের চেয়ে ৫০ শতাংশ বেশি। আর নারীদের ক্ষেত্রে ঝুঁকিতে আছেন তারা, যাদের উচ্চতা ৫ ফুটের চেয়ে কম।

নতুন গবেষণার জন্য আগের ৫২টি প্রতিবেদনও ব্যবহার করেছেন ফিনল্যান্ডের গবেষকরা। পুলা পাজানেনের নেতৃত্বে চালানো এ গবেষণা নিয়ে ফিনল্যান্ডের হেলসিঙ্কি ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক জাক্কো টোমিলেহেটো বলেন, ‘ফলাফল একই পাওয়া গেছে। এর অর্থ কম উচ্চতার সঙ্গে হৃদরোগের সম্পর্ক আছে।’ তবে এর সঙ্গে শরীরবৃত্তীয় কিংবা পরিবেশগত অথবা জিনগত অন্য কোনো কারণ জড়িত কি-না, তা প্রতিবেদনে সুস্পষ্ট নয় বলে মত প্রকাশ করেন তিনি।

এমনও মত আছে, খাটো মানুষের করোনারি ধমনী ছোট। গর্ভে থাকাবস্থায় কোনো ধরনের সংক্রমণ কিংবা ছোটবেলায় পুষ্টির অভাব, তা আরও সঙ্কীর্ণ করে তুলতে পারে, যা বাড়িয়ে দিতে পারে হৃদরোগের ঝুঁকি। অবশ্য পাজানেন মনে করছেন, প্রতিটি মানুষের গঠন ও চরিত্রের বৈশিষ্ট্য নির্ধারক জিনই এর জন্য দায়ী হতে পারে।

তবে খাটোদের জন্য কিছুটা সান্ত্বনার বাণীও দিয়েছে ফিনল্যান্ডের গবেষক দল। পাজানেন বলছেন, কম উচ্চতা হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ানোর একটি কারণ হতে পারে। আর এর ওপর কারও হাত নেই। তবে ওজন ঠিক রেখে, ধূমপান না করে আর নিয়মিত শরীরচর্চা চালিয়ে ঝুঁকি অনেকটাই কমানো সম্ভব। আর লম্বাদের প্রতি তার সাবধান বাণী, এত খুশি হওয়ার কিছু নেই। কারণ লম্বা হলেই যে হৃদরোগ হবে না, এমনটা ভাবা হবে বোকামি।