সুস্থ থাকার উপায়

বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সুস্থ থাকার উপায় - বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সঠিক সময়ে ঘুম থেকে ওঠার ৬টি সহজ উপায়!

সকালে ঘুম থেকে ওঠা কতোটা কষ্টকর তা আমরা সবাই জানি। ঘুমের আবেশে জড়িয়ে থাকার আরাম থেকে উঠতে কারোরই মন চায় না। কিন্তু যতই মন না মানুক, শত অনিচ্ছা সত্ত্বেও বিছানা থেকে উঠতে হয়। কিন্তু এই দোটানার মধ্যে থাকতে থাকতেই দেরি হয়ে যায় সকলের। ভোরের পাখি হওয়া আর হয়ে উঠে না। আর পুরো দিনটিই এর প্রভাবে কাটে। সকালে দেরি করে ঘুম থেকে ওঠা যতটা স্বাস্থ্যের জন্য খারাপ, ঠিক ততোটাই মানসিক প্রশান্তির জন্য খারাপ। সকালের তাজা হাওয়া মন ও স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ভালো। তাই সকালে জলদি ওঠার অভ্যাস করা সকলের জন্য বেশ জরুরী। আর এই ভোরে ওঠার কষ্টকর অভ্যাসকে সহজ করার রয়েছে বেশ ভালো কিছু উপায়। আসুন তবে জেনে নেই এই উপায় গুলো যাতে একটি ভালো অভ্যাস সহজে আয়ত্ত করা সম্ভব হয়।

 

ঘুমের সময় ঠিক রাখুন

ব্যস্ত জীবনে কম বেশী সবারই রাতে একেক সময় কিংবা দেরি করে ঘুমাতে যাওয়া হয়। প্রথমে এই অভ্যাসটি দূর করতে হবে। কারণ রাতে দেরি করে ঘুমোতে গেলে ঘুম পুরো হয় না বলে ভোরে উঠা সম্ভব হয় না। আবার একেক দিন একেক সময় রাতে ঘুমোতে গেলে ঘুমের পরিমাণ ও সময় ওলট পালট হয়ে একটি বদ অভ্যাসের সৃষ্টি হয়। তাই চেষ্টা করুন রাতে একটি নির্দিষ্ট সময় ঘুমোতে যাবার। আর তা থেকে ঠিক ৬/৭ ঘণ্টা পর ঘুম থেকে উঠার চেষ্টা করুন। নিয়মিত একটু তাড়াতাড়ি নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমোতে গেলে ও ভোরে ঘুম থেকে উঠলে অভ্যাসে পরিণত হয়ে যাবে।

অ্যালার্ম ঘড়ি বিছানা থেকে দূরে রাখুন

অনেকেই আছেন ভোরে ঘুম থেকে ওঠার জন্য ঘড়িতে কিংবা মোবাইলে ফোন অ্যালার্ম দিয়ে বিছানায় কিংবা বিছানার পাশে রেখে ঘুমান। এবং প্রতিদিনই অ্যালার্ম বাজার সাথে সাথে হাতের নাগালে পেয়ে অ্যালার্ম বন্ধ করে আবার ঘুমিয়ে পড়েন। এই সমস্যা দূর করতে আপনাকে একটু কষ্ট করে অ্যালার্ম ঘড়িটা বিছানা থেকে দূরে রাখুন। যাতে আপনাকে সকালে অ্যালার্ম বন্ধ করার জন্য বিছানা থেকে উঠে যেতে হয়। আর বিছানা থেকে ওঠা আপনার ঘুম দূর করতে সাহায্য করবে।

ঘরে ভোরের আলো ঢোকার ব্যবস্থা করুন

ভোরের আলো কিংবা সকালের কুসুম আলো ঘরে না ঢোকার ব্যবস্থা না থাকলে রাতের আভা ঘর থেকে বের হয় না। ফলে ঘুমও কাটে না সহজে। বিছানা সরাসরি জানালার পাশে রাখার চেষ্টা করুন। যাতে সকালের আলো আপনার ঘুম ভাঙতে সাহায্য করে। ঘরে সকালের কোমল আলোয় ঘুম ভাঙ্গার সাথে সাথে মনও ভালো হয়ে যাবে। দিনের শুরু হবে আনন্দে।

জরুরী কিছু প্ল্যান করুন সকালের জন্য

অনেকেই আছেন দরকার না হলে ভোরে ঘুম থেকে উঠেন না। তাদের জন্য ভোরে উঠার অভ্যাস করার একটি সহজ উপায় হচ্ছে ভোরের দিকে কোনো জরুরী কাজ করার প্ল্যান করা। কাজটির জন্য হলেও ঘুম থেকে উঠতে কষ্ট একটু কম হবে। আর এভাবে কিছুদিন নিয়মিত ভোরে উঠতে পারলে তা আপনা আপনিই অভ্যাসে পরিনত হবে।

undefined

অনিদ্রারোগ দূর করুন

অনেকেই রাতে দেরি করে ঘুমানোর অভ্যাসটির কারনে অনিদ্রারোগে ভুগে থাকেন। এই রোগটি দূর করতে হবে। অনিদ্রারোগটি প্রাথমিক পর্যায়ের হলে হালকা আলোয় কিংবা অন্ধকার ঘরে ঘুমুতে চেষ্টা করুন অথবা বই পড়ার অভ্যাস করুন বিছানায় শুয়ে। আর অনিদ্রা বেশী হলে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে এই রোগটি অতি সত্বর দূর করুন।

ব্যায়ামের মাধ্যমে শরীরে ক্লান্তি আনুন

অনেকেই আছেন যারা সকালে উঠতে চান কিন্তু রাতে ঘুমুতে পারেন না বলে সকালে ঘুম থেকে উঠতে দেরি হয়। এবং এর ফলশ্রুতিতে অন্যান্য অনেক কাজে দেরি হয়। ঘুম আসলে তখনই আসে যখন শরীরে ক্লান্তি আসে। শরীরে ক্লান্তি ভর করে বলেই ঘুমে চোখ বন্ধ হয়ে আসে। সকালে ব্যায়াম করলে দুটি উপকার পাবেন। প্রথমত, সকালের ঘুম ঘুম ভাব দূর হয়। এবং দ্বিতীয়ত পুরো দিনের কাজ করার ক্ষমতা অর্জন করে রাতে শরীরে ক্লান্তি আনতে সাহায্য করে। তাই ব্যায়াম করুন ও ভোরে উঠার অভ্যাস করুন।

Category: ঘুম