সুস্থ থাকার উপায়

বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সুস্থ থাকার উপায় - বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

মেনোপজের পরে পেশির গঠন ঠিক রাখতে হরমোন থেরাপি ও ব্যায়াম

women-cureমেনোপজ-পরবর্তী মহিলারা তাদের মাংসপেশির গঠন ঠিক রাখার জন্য টেসটোস্টেরন নামক হরমোন থেরাপি নিতে পারেন। জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির এক গবেষণায় এই তথ্য দেয়া হয়েছে।

বয়োবৃদ্ধ হওয়ার পর অনেক মহিলার শরীরের মাংসপেশি ঢিলা হয়ে যায়। কিন্তু শারীরিক শক্তি বজায় রাখতে হলে মাংসপেশির দৃঢ়তা বজায় রাখা অপরিহার্য। আর যেহেতু শরীরের চর্বির চেয়ে মাংসপেশি বেশি ক্যালরি ক্ষয় করে, তাই স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখার জন্য মাংসপেশির দৃঢ়তা থাকা অত্যাবশ্যক।

পুরুষদের মতো মহিলারা টেসটোস্টেরন উৎপন্ন করে, যদি তার পরিমাণ খুব কম হয়। আর বয়স বেড়ে গেলে কিছু মহিলা খুব কম পরিমাণ হরমোন উৎপন্ন করেন। এক গবেষণায় দেখা গেছে, ৪০ জন মহিলা যারা শুধু ইস্ট্রোজেন গ্রহণ করেছিলেন, তাদের চার সপ্তাহের জন্য ইস্ট্রোজেন টেসটোস্টেরন থেরাপি প্রয়োগ করার পর ৪-৬ শতাংশ পাতলা মাংসপেশি বৃদ্ধি হয়। মহিলারা আরো তাদের শরীর থেকে ২-৪ শতাংশ চর্বি হারায়। এসব তথ্য দিয়েছেন বাল্টিমোর ইউনিভার্সিটির মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ও গবেষক এড্রিয়ান ভবস।

যদি আপনি মাংসপেশির দৃঢ়তা এবং শক্তি হারান তাহলে এই টিপসগুলো মনে রাখবেন:

  • নিয়মিত ব্যায়াম করুন
  • আপনার সার্বিক ফিটনেসের জন্য সপ্তাহে পাঁচবার কমপক্ষে ৩০ মিনিট করে অ্যারোবিক ব্যায়াম করবেন।
  • চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন
  • চিকিৎসকের কাছ থেকে ইস্ট্রোজেন টেসটোস্টেরন থেরাপির ভালো-মন্দ জেনে নিন। টেসটোস্টেরন আপনার জন্য প্রযোজ্য হবে না যদিÑ
  • আপনার রক্তে এইচডিএল কোলেস্টরল মাত্রা (ভালো কোলেস্টেরল) কম থাকে। এই সংযুক্ত থেরাপি এইচডিএল মাত্রাকে কমিয়ে দিতে পারে।
  • আপনার যদি লিভার বা যকৃতের সমস্যার ইতিহাস থাকে। এই সংযুক্ত থেরাপি লিভারের কার্যকারিতায় খারাপ প্রভাব ফেলে।

সুস্বাস্থ্যের জন্য খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করুন

প্রতিদিন একই ধরনের খাবার খেলে মুখের রুচি কমে যায়। তা ছাড়া একই ধরনের খাবার অনেক সময় স্বাস্থ্যকরও হয় না। এ জন্য খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করা প্রয়োজন। কিন্তু খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করে যে খাদ্য আপনি গ্রহণ করবেন সেটা হতে হবে অবশ্যই পুষ্টিসমৃদ্ধ। কী ধরনের খাবার আপনার জন্য প্রযোজ্য হবে সে ব্যাপারে পুষ্টিবিশেষজ্ঞরা একটি গাইডলাইন দিয়েছেন।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের স্বাস্থ্য বিষয়ক লেখিকা জন ব্রডি বলেন, আপনি দৈনিক আট গ্লাস পানি খাবেন। এতে আপনার শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ অর্থাৎ আপনার মস্তিষ্ক থেকে শুরু করে পায়ের আঙুল পর্যন্ত সুস্থ থাকবে। হার্ভার্ড স্কুল অব পাবলিক হেলথের পুষ্টি বিভাগের চেয়ারম্যান ওয়াল্টার উইলেট বলেন, আপনি প্রতিবেলায় কিছু কার্বোহাইড্রেট যেমন গরম রুটি ও বাদামি চালের ভাত খাবেন। পরিশোধিত কার্বোহাইড্রেট ও চিনি বেশি খেলে আপনার ওজন বেড়ে যাবে এবং স্বাস্থ্য সমস্যা তৈরি হবে। এইট উইকস টু অপটিমাম হেলথের লেখক অ্যান্ড্রু ওয়েল বলেন, যেসব খাবারে হাইড্রোজেনেটেড তেল রয়েছে সেসব খাবার আপনি একেবারেই পরিহার করবেন। প্রমাণ রয়েছে যে এসব অপ্রাকৃতিক চর্বি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়।

আমেরিকার মহিলা সকার টিমের পুষ্টিবিশেষজ্ঞ ক্রিস্টিন কার্ক বলেন, বেশি করে ফল ও সবজি খাবেন। এসব খাবার আপনার ওজন কমিয়ে আপনাকে ফিট রাখতে সাহায্য করবে। পুষ্টিবিশেষজ্ঞ ক্যাথলিন জনসন বলেন, আপনি খাবার গ্রহণের সময় পরিমাণের দিকে লক্ষ রাখবেন। বেশির ভাগ লোকই খাওয়ার সময় প্রয়োজনের চেয়ে বেশি খেয়ে ফেলে; এটা স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়।

যদি আপনি বয়স ধরে রাখতে চান এবং বুড়ো হতে না চান তাহলে ঠিক যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুই খাবেন, তার বেশি নয়। নিউ ইয়র্কের দি ক্যান্সার প্রিভেনশন অ্যান্ড ওয়েলনেস প্রোগ্রামের পরিচালক মোশে সাইক বলেন, খাবার গ্রহণের সময় আপনার ক্যালরি নিয়ন্ত্রণ করবেন। চর্বি থেকে ২০ শতাংশের বেশি ক্যালরি গ্রহণ করবেন না। দৈনিক ফল ও সবজি খাবেন বেশি করে। কম ক্যালরি গ্রহণের জন্য আপনি টোস্ট খেতে পারেন।