সুস্থ থাকার উপায়

বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সুস্থ থাকার উপায় - বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

পুৃষ্টিগুণ : বাতাবি লেবুর উপকারিতা

বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চলের একটি অত্যন্ত পরিচিত ফল বাতাবি লেবু। গ্রামদেশের অনেকে ফলটিকে জাম্বুরা বলেও ডেকে থাকেন। জাম্বুরা বা বাতাবি লেবু—যাই বলি না কেন ফলটি খুবই ভিটামিনসমৃদ্ধ একটি ফল। বিশেষত ভিটামিন সি বেশি পরিমাণে পাওয়া যায় বাতাবি লেবুতে।

বাতাবি লেবু আমাদের দেশ ছাড়াও পার্শ্ববর্তী দেশ যেমন ভারত, চীন, জাপান, ফিজি, এমনকি আমেরিকাতেও উত্পন্ন হয়। স্থানভেদে বাতাবি লেবুর রসালো কোষগুলো হলুদ, লাল ও গোলাপি হয়ে থাকে। বাতাবি লেবুর খাদ্য উপাদান যাদের গ্যাসিডিটি বা গ্যাস আছে তাদের জন্য বেশ উপকারী। তাছাড়াও বাতাবি লেবুতে আছে বায়োফ্লভনয়েড যা ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি থেকে মানুষকে রক্ষা করে। আর এতে বিদ্যমান ভিটামিন সি রক্তনালির সংকোচন-প্রসারণ ক্ষমতা বাড়ায়।

ডায়াবেটিস, জ্বর, নিদ্রাহীনতা, মুখের ভেতরের ঘা, পাকস্থলী ও অগ্ন্যাশয়ের বিভিন্ন রোগ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। তাছাড়া বাতাবি লেবুর ভিটামিন কোলেস্টেরেল নিয়ন্ত্রণ করে, সেইসঙ্গে বিভিন্ন হৃদরোগের হাত থেকে আমাদের রক্ষা করে। অতিরিক্ত ওজন কমাতেও সাহায্য করে বাতাবি লেবু। মানবশরীরের অন্যতম একটি নিয়ামক হলো রক্ত। এই রক্ত পরিষ্কারে যথেষ্ট সাহায্য করে বাতাবি লেবু। আর প্রতি ১০০ গ্রাম বাতাবি লেবুতে খাদ্য উপাদান হিসেবে আপনি পাবেন ক্যালোরি ৩৭ কিলোক্যালোরি, শর্করা ৯.২ গ্রাম, চিনি ৭ গ্রাম, বিটা ক্যারোটিন ১২০ মা.গ্রাম, ভিটামিন সি ৬০ গ্রাম। এছাড়াও সামান্য খাদ্য-আঁশ, প্রোটিন ও ফ্যাট থাকে।

প্রতিদিন এক গ্লাস করে বাতাবি লেবুর রস খেলে শরীরে ক্যান্সার প্রতিরোধে চমত্কার কাজ করে। তবে এখন বাজারে অনেকেই বাতাবি লেবুর কোষ মসলা মাখিয়ে বিক্রি করে, যা কোনোমতেই খাওয়া উচিত নয়, বরং খেতে চাইলে আস্ত বাতাবি লেবু বাজার থেকে কিনে বাড়িতে নিয়ে খাওয়াই স্বাস্থ্যসম্মত।