সুস্থ থাকার উপায়

বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

সুস্থ থাকার উপায় - বিভিন্ন দৈনিক সংবাদপত্র থেকে নেয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত কিছু লেখা…

কিডনি সুস্থ রাখতে

শরীরের অন্যতম ভাইটাল অরগান কিডনি। হার্ট, ফুসফুস, লিভার, ব্রেইন-এর মত কিডনি অকেজো হলে জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। কিডনি ভালো না থাকলে ডায়ালাইসিস অথবা কিডনি ট্রান্সপ্লান্ট করে হয়তবা জীবনের গতি খানিকটা টিকিয়ে রাখা যায়। কিন্তু জীবন হয়ে ওঠে দুর্বিসহ।

দরিদ্র, মধ্যবিত্ত পরিবার হয় সর্বশান্ত, নি:স। কারণ কিডনির চিকিত্সা অত্যন্ত ব্যয়বহুল। অথচ কিছু নিয়ম-নীতি অনুসরণ করে কিডনি সুস্থ রাখা যায়। প্রখ্যাত কিডনি রোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক হারুন অর রশীদ কিডনি সুস্থ রাখার জন্য কিছু পরামর্শ দিয়েছেন। তার এসব পরামর্শের মধ্যে রয়েছে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় থাকতে হবে আশ জাতীয় খাবার, শাক সবজি, নিরামিষ।  তবে মাছ খেতে পারেন।

রেড মিট যেমন গরুর মাংস, খাসির মাংস পরিহার করতে হবে। তবে মুগরীর মাংস খাওয়া যাবে। কম মসলাযুক্ত খাবার খেতে হবে। ভাত কম খেতে হবে। অধ্যাপক হারুন অর রশীদের মতে কিডনির সবচেয়ে ক্ষতিকারক খাবার সফট ড্রিংকস, ফাস্টফুড। কিডনি ভালো রাখতে হলে ফাস্টফুড পরিহার করা ভালো। এছাড়া যাদের ইতোমধ্যেই কিডনির সমস্যা আছে তাদের অবশ্যই কোন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী খাবার তালিকা অনুরসণ করতে হবে।

এছাড়া বছরে একবার অন্তত: রক্তের সেরাম ক্রিয়েটিনিন পরীক্ষা করা উচিত। রক্তের ক্রিয়েটিনিন এর মাত্রা ১ এর নীচে থাকা ভালো। ক্রিয়েটিনিন বেড়ে গেলে কিডনির জটিলতা শুরু হয়। অকেজো হয়ে পড়তে পারে কিডনি। তাই কিডনি ভালো রাখতে যথাযথ খাদ্য তালিকা যেমন অনুসরণ জরুরী তেমনি প্রয়োজন পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান। দিনে অন্তত: ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করা উচিত।